রবিবার, ২০ আগস্ট ২০১৭

English Version

স্বাস্থ্য সম্পর্কে মানুষ অনেক সচেতন-

No icon তারকা স্বাস্থ্যকথা

ডা. সারওয়ার আলী, ট্রাস্টি, মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর এবং চেয়ারম্যান,

রেনেটা ফার্মাসিউটিক্যাল লি:

নিজস্ব প্রতিবেদক: এ যেন ভীষণ সুন্দরের গল্প। মুগ্ধতা ভরা চারপাশ। আমরা হারিয়ে যাই। আলোকিত অতীতে। তিনি বলে যাচ্ছিলেন। অনর্গল। চোখের সামনে যেন ভেসে ওঠে জীবন্ত একাত্তর। মুক্তিযুদ্ধ। টের পাই, কী চমৎকার আত্মবিশ্বাস-দৃঢ়তা। বলছিলেন, উন্মাতাল দিনগুলোর দুঃসাহসিক শব্দগাথা।

এমন সহজ-সরল প্রাজ্ঞজন, সমাজে বিরল। বলা যায়, বেঁচে থাকা ইতিহাস। বাঙ্গালির, বাংলাদেশের। তাঁর সহজীয়া ভঙ্গীর উচ্চারণে আমরা ন্ব্যুজ হই। অবনত হই প্রাজ্ঞতায়- প্রগাঢ় ভালবাসায়।

ডা. সারওয়ার আলী। ট্রাস্টি, মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর। রেনেটা ফার্মাসিউটিক্যাল লি:-এর চেয়ারম্যান, বোর্ড অব ডিরেক্টরস। পাশাপশি বোর্ড অব ম্যানেজমেন্টের চেয়ারম্যান, বারডেম হাসপাতালের। ভাইস প্রেসিডেন্ট, ছায়ানট। বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাস্থ্যের বিভিন্ন বিষয়ে কথা বললেন আমারহেলথ ডটকম-এর সঙ্গে। ১৯ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার সকালে। বারডেম হাসপাতালের বোর্ড রুমে। অনেকক্ষণ। সেই কথোপকথনের আলোকিত বাক্যসমষ্টি নিয়েই এই লেখা। আজ প্রকাশিত হলো সাক্ষাতকারের শেষ পর্ব

সাক্ষাতকার: তাপস রায়হান, ছবি: আওয়াল হোসেন

আমারহেলথ ডটকম: আপনিতো মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের ট্রাস্টি। এ বিষয়ে কিছু বলবেন?

ডা. সারওয়ার আলী: এটা গড়ে তুলি, ১৯৯৬ সালে। আমরা ৮ জন মিলে। এর মাধ্যমে আমরা একাত্তরের স্মৃতি সংরক্ষণের চেষ্টা করছি।

আমারহেলথ ডটকম: কিন্তু বর্তমানতো ভিন্ন কথা বলে?

ডা. সারওয়ার আলী: আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। মুক্তিযুদ্ধ এখনও শেষ হয়নি।  দোষটা কিন্তু শুধু রাজনীতিবিদদের নয়। আমাদের সামাজিক শক্তি, সাংস্কৃতিক শক্তি কিন্তু ধর্মান্ধ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চারভাবে দাঁড়াতে পারে নি। সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারে নি। আর গ্লোবাল ফেনোমেনা, রিলিজিয়াস মিলিট্যান্সি মিলে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে।

আমারহেলথ ডটকম: যেমন?

ডা. সারওয়ার আলী:  একপেশে ধারণা পোষণ করা কখনও ঠিক না। ধর্মের মর্মবাণী নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে যেতে হবে। তাদেরকে ধর্মের আসল কথা বোঝাতে হবে। সকল ধর্মের মানুষকে নিয়ে যে স্বপ্নমঙ্গল দেশের স্বপ্নে বিভোর হয়ে মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছিলাম, সেই স্বপ্নের বাস্তবায়নতো এখনও হয়নি। অধোগতি থেকে সমাজকে বের করে নিয়ে আসতে হবে।

আমারহেলথ ডটকম: এক্ষেত্রে রাজনৈতিক ঐক্যটাতো ভীষণ জরুরি?

ডা. সারওয়ার আলী: অবশ্যই। কিন্তু বাস্তবতাতো ভিন্ন। ক্ষমতাসীন দল হচ্ছে, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দল। এটা সবাইকে মানতে হবে। এখনতো ভোটের রাজনীতি। যে কারণে ক্ষমতাসীনরা এই ধর্মান্ধ, মৌলবাদীদের মানিয়ে চলার চেষ্টা করছে। আপোষ করে চলছে। আবার দুর্ভাগ্যের বিষয় হচ্ছে, আরেকটি দল, এদের সঙ্গে মৈত্রী করে চলছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের সামাজিক-সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীকে যুক্তভাবে দৃঢ়তার সঙ্গে এগিয়ে আসতে হবে।

আমারহেলথ ডটকম: আপনি কি এ বিষয়ে আশাবাদী?

ডা. সারওয়ার আলী: আমি অসম্ভব আশাবাদী মানুষ।  আমাদের তরুণ সমাজ কিন্তু প্রচন্ড আধুনিক। তারাই এই সমাজকে আধুনিক, ধর্ম নিরপেক্ষ চেহারা দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

আমারহেলথ ডটকম: একটু অন্য বিষয়ে আসি। আমরা কি স্বাস্থ্য সচেতন?

ডা. সারওয়ার আলী: সত্যি বলতে কী,  স্বাস্থ্য সম্পর্কে মানুষ এখন অনেক বেশি সচেতন। বিশেষ করে, শিক্ষিত সমাজ যথেষ্ট সচেতন।  তবে, সাধারণ মানুষদের মধ্যে আরও সচেতনতা তৈরি করতে হবে। তাদের কাছে যেতে হবে। লোভের বশবর্তী হয়ে যারা খাদ্যে ভেজাল দিচ্ছে, ভেজাল ওষুধ দিচ্ছে, এখনই তাদের দমাতে না পারলে, উন্নয়নের এই অগ্রগতিটা কিন্তু থেমে যাবে। টিকবে না।

আমারহেলথ ডটকম: তাহলে আমরা সুস্থ, স্বাস্থ্যসম্পন্ন সমাজ কীভাবে পাব?

ডা. সারওয়ার আলী: এটা ঠিক, দেশ উন্নতির পথে যাচ্ছে। তবে এটা টিকিয়ে রাখতে হলে, সমন্বিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই। সবাইকে একটা কেন্দ্রবিন্দুতে আসতেই হবে।  আর তখনই মুক্তিবুদ্ধিসম্পন্ন, সুস্থ-স্বাস্থ্যসম্পন্ন সমাজ পাব।

সর্বাধিক পঠিত খবর

মুখে ঘা হওয়ার কারণ ও প্রতিকার


আপনিও এই রোগে ভুগছেন না তো!



হাত এই অবস্থানে রাখুন ... দেখুন

ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে যে খাবার


ক্যানসার-হৃদরোগ-অবসাদ! আধঘণ্টায় আরোগ্য!

কীভাবে দূর করবেন সিগারেটের নেশা?