বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯

English Version

মুক্তির অপেক্ষায় বীরজান ও বিন্দিয়া জুটির ছবি ‘মাঝির প্রেম’

No icon ফিল্ম

আমার বিনোদন ডেস্ক: মুক্তির অপেক্ষায় আছে বীরজান ও বিন্দিয়া জুটির ছবি ‘মাঝির প্রেম’। রকিবুল আলম রকিবের পরিচালনায় ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী বছরের শুরুতে। পুর্ণদৈর্ঘ্য একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ দীর্ঘ সময়ের ব্যাপার। বিভিন্ন লোকেশনে শুটিংসহ আনুষাঙ্গিক কারণে ৬ মাস থেকে এক বছর সময় লেগে যায় একটি সিনেমার শুটিং শেষ করতে। তা ছাড়া একটানা শুটিং করলেও একটি পুর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র শেষ করতে কমপক্ষে দেড় মাস সময় লেগে যায়। তবে অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি ‘মাঝির প্রেম’ শিরোনামের সিনেমাটি পুরো শুটিং মাত্র বিশ দিনেই শেষ করেছেন পরিচালক। এ সিনেমায় চিত্রনায়িকা বিন্দিয়া কবিরের বিপরীতে অভিনয় করছেন বীরজান।

গত ২৪ অক্টোবর থেকে সাভারে এ সিনেমার শুটিং শুরু হয়। সেখানেই একটানা এ সিনেমার শুটিং হয়। বড়ুয়া মনোজিত ধীমন প্রযোজিত চট্টলা ফিল্মস এর ব্যানারে নির্মিতব্য এ সিনেমায় বিন্দিয়া-বীরজান ছাড়াও মুক্তা নামে আরেক নতুন নায়িকার অভিষেক হচ্ছে।

বিন্দিয়া অভিনীত সর্বশেষ ‘মার্ডার-টু’ শিরোনামের সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। এটি পরিচালানা করেছেন এম এ রহিম।  বিন্দিয়ার বিপরীতে অভিনয় করেন শাহরিয়াজ। এ ছাড়াও বিন্দিয়া ‘রংবাজি’ সিনেমার শুটিং করছেন।  বিন্দিয়া অভিনীত ‘মাস্তান পুলিশ’ সিনেমাটি আগামী ৬ জানুয়ারি সারা দেশে মুক্তি পাবে। রকিবুল আলম রকিব পরিচালিত এ সিনেমায় বিন্দিয়ার বিপরীতে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক কাজী মারুফ।

বীরজান অভিনীত সর্বশেষ ‘অনন্তকাল’ শিরোনামের সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। এটি পরিচালানা করেছেন মাসুম আজিজ।  এ ছাড়াও বিরজান সায়মন তারিক পরিচালিত ‘মজনু’, দেলেয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত তুমি আছো তুমি নেই আলি আজাদ পরিচালিত দেশ আমার সিনেমার শুটিং করছেন। 

পরিচালক রকিব  বলেন, ‘একেবারেই গ্রামের গল্প নিয়ে নির্মাণ করেছি ছবিটি। এক অহংকারী বড়লোকের মেয়ের সঙ্গে এক মাঝির প্রেম হবে এ ছবিতে। এখানে জুটি বেঁধে কাজ করছেন বীরজান ও বিন্দিয়া। আসলে প্রেমের ছবি সব সময়ই নির্মাণ করা হয়। গ্রামের এমন বড়লোকের মেয়ের সঙ্গে গরিবের প্রেমের গল্পের ছবি অনেক হয়েছে। আবার সব ছবির প্রেমের গল্পে ভিন্নতা থাকে। আমি মনে করি, আমার গল্পটা একেবারেই নতুন ধরনের মনে হবে দর্শকদের কাছে।’

রকিব আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। যাঁরা শহরে থাকেন, তাঁরাও কোনো না কোনো গ্রাম থেকেই এসেছেন। সবাই গ্রামের পরিবেশ ভালোবাসেন। একটু বেশি অবসর পেলে গ্রামে যেতে চান। সপ্তাহের ছুটির দিনে আশপাশের গ্রামে যেতে চান ঘুরতে। গ্রামের পরিবেশের ছবি দর্শক এখনো অনেক বেশি পছন্দ করেন। আমার এই ছবির গল্পটা অনেক আধুনিক। শুটিং করছি, যা ক্যামেরায় ধারণ করতে চেয়েছিলাম, তা করতে পারছি। আমি বিশ্বাস করি, দর্শক আমাদের ছবি পছন্দ করবেন।’

সর্বাধিক পঠিত খবর

জয়েন্টে ব্যথা বাড়ায় যে ৩ খাবার








কিডনি ভালো রাখতে করণীয়