শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

English Version

তৃণমূলে চিকিৎসার মান বাড়ানোর পরামর্শ

No icon সারা দেশের খবর

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭: ঢাকার হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ কমাতে দেশের তৃণমূলে চিকিৎসাসেবার মান বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের দাবি, রাজধানীর ঢাকার হাসপাতালগুলোতে চাপ কমাতে দেশের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোকে স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা ইউনিট হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। জোর দিতে হবে চিকিৎসা ব্যবস্থায় রেফারেল পদ্ধতিতে। ফলে একদিকে যেমন চাপ কমবে তেমনি রোগীরাও নানা হয়রানি থেকে বাঁচবেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিদিন গড়ে পাঁচ থেকে ছয় হাজার রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। কিন্তু গত ২২ জুলাই চিকিৎসা নেন ৮ হাজার ৩৭৩ জন রোগী। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বেড সংখ্যা ২ হাজার ৫০০ হলেও সেখানে  রোগী থাকেন তিন হাজার ৩০০ থেকে তিন হাজার ৮০০ জনের মতো। বেড না থাকায় ওয়ার্ডের ফ্লোরে, করিডোরে, এমনকি বাথরুমের সামনে থাকতে হচ্ছে রোগীদের জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালে ৪৩৪টি বেডের বিপরীতে ভর্তি হন ৯০০ থেকে ১ হাজার রোগী।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সাবেক উপদেষ্টা ডা. মোজাহেরুল হক বলেন, ‘উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, রোগী অনুপাতে নার্সের সংখ্যা, টেকনোলজিস্টসহ যন্ত্রপতি নেই। নেই পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ। উপজেলা পর্যায়ে রোগীরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না পেয়ে রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে আসছেন। ফলে ঢাকার হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ বাড়ছে। এছাড়া ঢাকায় চিকিৎসা নিতে এসে নানা ধরণের হয়রানির শিকার হচ্ছেন গ্রাম থেকে আসা রোগীরা।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতর কেন্দ্রীয়ভাবে উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসকদের নিয়োগ দেয়। আর এখানে সঠিকভাবে মনিটরিংয়ের অভাবেই চিকিৎসকরা সেখানে দায়িত্ব পালন করেন না। ফলে রোগীরা বাধ্য হয়ে ঢাকায় আসেন।’

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান বলেন, ‘ঢাকার হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ কমাতে জেলা হাসপাতালগুলোকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে হবে। জেলা শহরগুলোতে সিনিয়র কনসালটেন্ট, সিনিয়র ফিজিসিয়ান, পর্যাপ্ত মেডিক্যাল অফিসারসহ সব ধরনের সুযোগ দিলে ঢাকার হাসপাতালগুলোর ওপর চাপ কমবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এগুলো অর্গানোগ্রামের বিষয়। একটি ৫০০ বেডের, একটি আড়াইশ বেডের এবং একটি ১০০ বেডের হাসপাতালকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ থেকে এ বিষয়ে ওয়ার্ক আউট করা হয়েছে এবং খুব শিগগিরই আমরা সেটি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে জমা দেবো। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হলেই সমস্যার সমাধান হবে।’

সর্বাধিক পঠিত খবর

ভারতে ভূমিষ্ঠ হল মৎস্যকন্যা !





শীতে দই খাওয়ার উপকারিতা

গ্যাস সমস্যায় যেসব খাওয়া নিষেধ



শিশুর মুখ থেকে বের হলো জীবত কই মাছ!