সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

English Version

ট্যাটু করানোর আগে সাবধান!

No icon অামার ডাক্তার

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১৫ অক্টোবর’১৮: আমেরিকার মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ট্যাটু মূলত প্রভাব ফেলে আমাদের ঘর্মগ্রন্থিতে। চিরস্থায়ী ট্যাটু করার ক্ষেত্রে ত্বকে ৩ থেকে ৫ মিলিমিটার গভীর ছিদ্র করা হয়ে, যেখানে রয়েছে আমাদের ঘর্মগ্রন্থি, ট্যাটুর ফলে নষ্ট হয়ে যায় বেশ কয়েকটি গ্রন্থি। এর ফলে শরীরে প্রভাব ফেলে নানাধরনের রোগ। তাই চিরস্থায়ী ট্যাটু না করানোরই নির্দেশ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। বিশেষত যারা উচ্চরক্তচাপ, হাইপারটেনশেন, হৃদরোগ বা মধুমেহ রোগে আক্রান্ত, অথবা যাদের মেক-আপ বা লিপস্টিকে অ্যালার্জি রয়েছে, তাঁদের জন্য বিপদের কারণ হতে পারে ট্যাটু।

ট্যাটু করানোর আগে যে বিষয়গুলিতে নজর দেওয়া উচিত–

১) আগেই দেখে নিন, ট্যাটু স্টুডিও ও ট্যাটু করার যন্ত্রপাতি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কিনা।

২) যে সূচ দিয়ে আপনার ট্যাটুটি আঁকা হচ্ছে সেটি যেন সিল করা প্যাকেটে থাকে।

৩) ট্যাটু আঁকার সময় অবশ্যই যেন আর্টিস্টের হাতে গ্লাভস থাকে।

৪) আর যেটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, তা হল ট্যাটু ডাই যা সহজেই প্রভাব ফেলে ত্বকে।

তবে এ তো গেল ট্যাটু করানোর আগের নির্দেশিকা, ট্যাটু করানোর পরেও মেনে চলা উচিত যেসব নিয়ম, সেগুলি হল–

১) ট্যাটু করা ত্বক নখ দিয়ে চুলকোনো বা আঁচড়ানো একেবারেই নিষেধ।

২) ব্যবহার করুন অ্যান্টিবায়োটিক ক্রিম।

৩) ট্যাটু করনোর ২৪ ঘন্টা পর ব্যান্ডেজ খুলে পরিষ্কার জলে ধুয়ে ফেলুন এবং শুকিয়ে নিন।

৪) সূর্যের আলো থেকে দূরে থাকুন।

৫) ক্ষত না শুকানো পর্যন্ত সাঁতার কাটবেন না।

৬) এমন কোনও ওয়ার্কআউট করবেন না যা প্রভাব ফেলবে ট্যাটু করা ত্বকে।

৭) কোনোরকম অ্যালার্জি বা ব্যাথা হলে পরামর্শ নিন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের।

সর্বাধিক পঠিত খবর

কিডনি ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায়

বুদ্ধিমান সন্তান চেনার উপায়?

মেদ কমান, সুস্থ থাকুন


থাইরয়েডের সমস্যায় যে খাবার খাবেন




চুলের বৃদ্ধি বাড়ায় আদা ও রসুন

শীতে শ্বাসকষ্ট এড়াতে যা যা করবেন