রবিবার, ২৬ মে ২০১৯

English Version

গরমের ক্লান্তি দূরে করণীয়

No icon আমার ডাক্তার

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ২১ এপ্রিল ১৯:  গরমে দেহের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা ঠিক রাখতে ঘাম আকারে পানি নিঃসরণ হয়। ফলে আবহাওয়া গরম হওয়ার সাথে সাথে আমরা শরীর থেকে পানি হারাতে শুরু করি। এ সময়ে খুব ক্লান্তি লাগা কিংবা ঘুমঘুম ভাব হওয়া স্বাভাবিক বিষয়। তবে কিছু নিয়ম মেনে চলার পাশাপাশি বিশেষ খাদ্যাভ্যাসে আপনার ক্লান্তিবোধ কমে যাবে অনেকটাই—

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দৈনিক অন্তত ২.২ লিটার পানি পান করা প্রয়োজন। বাইরে বেরনোর পূর্বে এবং বাইরে থেকে ফেরার পর পর্যাপ্ত পানি পান করুন। এতে আপনার দেহে পানির সমতা বজায় থাকবে।

যারা ঘরের বাইরে বেশি সময় কাটান এবং অধিক শারীরিক পরিশ্রম করেন তারা অধিক পরিমাণে ঘামেন। ফলে পানি খাবার ব্যাপারে তাদের অধিক সচেতন হওয়া প্রয়োজন।

এক জায়গায় অনেকক্ষণ বসে একঘেয়ে কাজ করতে থাকলে দেহে অনেক বেশি ক্লান্তি এসে ভর করে। এর থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় হচ্ছে একঘেয়েমি কাটানো। আর সে কারণেই উঠে খানিকক্ষণ হাঁটাহাঁটি করে নিন। দেখবেন, ক্লান্তি দূর হয়ে গেছে।

কোমল পানীয় কিংবা এনার্জি ড্রিংক এড়িয়ে চলুন। এসব পানীয়তে যথেষ্ট পানি থাকলেও অধিক পরিমাণে খাওয়া ক্ষতিকর।

বেশি করে রসালো ফল খাবার চেষ্টা করুন। গ্রীষ্মকালে হাতের কাছেই পাওয়া যায় এমন অনেক ফল যেমন: তরমুজ, আনারস ইত্যাদিতে প্রচুর পানি থাকে।

খাবার স্যালাইন খেতে পারেন। বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির খাবার স্যালাইন পাওয়া যায়। এসব স্যালাইনে সুষম আকারে লবনের মিশ্রণ থাকে। বিশুদ্ধ পানিতে এ ধরনের স্যালাইন তৈরি করে খেতে পারেন অথবা এক গ্লাস পানিতে এক চামচ চিনি এবং এক চিমটি খাবার লবণ মিশিয়েও খাওয়া যেতে পারে। এতে আপনার দেহে লবণ ও পানির ভারসাম্য বজায় থাকবে।

কালো কিংবা গাঢ় রঙের পোশাক পরা থেকে বিরত থাকুন। সাদা কিংবা হালকা রঙের ঢিলেঢালা পোশাক পরুন। এতে পোশাক সূর্যের তাপ কম শোষণ করবে এবং পর্যাপ্ত বায়ু চলাচলে সাহায্য করবে। ফলে দেহ ঠাণ্ডা থাকবে এবং ঘামের পরিমাণ কম হবে।

সর্বাধিক পঠিত খবর


মুরগির কলিজা কতটা উপকারী?




যেসব ভুল ডেকে আনে স্ট্রোক

তুলসি পাতার অসাধারণ ঔষধী গুণাগুণ


লিভার পরিষ্কার রাখে যে খাবার