শনিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২০

English Version

হেঁচকি কমানোর উপায়

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৬৪দিন
:
১১ঘণ্টা
:
৩৯মিনিট
:
৫৬সেকেন্ড
No icon আমার ডাক্তার

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ২৮ সেপ্টেম্বর’ ১৯: মানুষের হেঁচকি ওঠা খুবই সাধারণ একটি বিষয়। যেকোন সময় যেকোন পরিস্থিতেই মানুষের হেচকি উঠতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, হেচকি ওঠার প্রধান কারণ পরিপাকতন্ত্রের গোলমাল। তবে হেঁচকির সবচেয়ে সাধারণ কারণ দ্রুত খাবার গ্রহণ করা। দ্রুত খাওয়ার কারণে খাবারের সঙ্গে সঙ্গে পেটের ভেতর বাতাস প্রবেশ করার কারণে ‘ভ্যাগাস’ নার্ভের কার্যকলাপ বাধাগ্রস্ত হয়, ফলে হেঁচকি ওঠে। চেতনানাশক, উত্তেজনাবর্ধক, পার্কিনসন্স রোগ বা কেমোথেরাপির বিভিন্ন ধরণের ওষুধ নেওয়ার ফলেও হেঁচকি উঠতে পারে। এছাড়াও কিডনি ফেল করলে, স্ট্রোকের ক্ষেত্রে, মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস বা মেনিনজাইটিসের ক্ষেত্রেও অনেকের হেঁচকি হতে পারে।

হেচকি ওঠা খুবই স্বাভাবিক একটি ঘটনা। সাধারাণত ওঠার এক মিনিটের মধ্যে এচকি নিজে থেকেই বন্ধ হয়ে যায়। তবে যদি হেচকি বন্ধ হতে দেড়ি হয় তাহলে যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস হেঁচকি থামানোর কয়েকটি পদ্ধতির কথা জানানো হয়েছে।

১। কাগজের ব্যাগে নিশ্বাস ফেলা (ব্যাগের মধ্যে মাথা ঢুকাবেন না), ২। দুই হাঁটু বুক পর্যন্ত টেনে ধরে সামনের দিকে ঝুঁকে পড়া, ৩। বরফ ঠাণ্ডা পানি খাওয়া, ৪। কিছু দানাদার চিনি খাওয়া, ৫। লেবুতে কামড় দেয়া বা একটু ভিনেগারের স্বাদ নেওয়া, ৬। স্বল্প সময়ের জন্য দম বন্ধ করে রাখা

এগুলো করার পরও যদি হেঁচকি উঠতে থাকে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

সর্বাধিক পঠিত খবর






দেশে চিকিৎসা গবেষণা বাড়াতে হবে

ডিমেনসিয়া রোগীর আহার

জ্বর ঠোসা সারানোর সহজ উপায়