শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯

English Version

অতিরিক্ত হেডফোন ব্যবহার বিপজ্জনক,তার জন্য যা করণীয়

No icon আমার ডাক্তার

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১০ অক্টোবর’ ১৯: অনেকেই দিনের বেশিরভাগ সময় কানে হেডফোন গুঁজে রাখেন।বিশেষ করে রাস্তায় চলাচলের সময় কানে হেডফোন গুঁজে রাখা মোটেও ঠিক নয়। কারণ এটি সড়কদুর্ঘটনার অন্যতম কারণ।

বিশেষজ্ঞদের মতে, দীর্ঘ সময় হেডফোন ব্যবহারে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা হতে পারে।

আসুন জেনে নেই এমন কিছু সমস্যা -

১. হেডফোন ব্যবহার সময় ৯০ ডেসিবেল বা তার বেশি মাত্রার আওয়াজ সরাসরি কানে গেলে শ্রবণে সমস্যা হতে পারে।

২. হেডফোন কারও সঙ্গে ভাগাভাগি করে ব্যবহার করবেন না।এতে সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

৩. বেশিরভাগ হেডফোন এয়ার-টাইট ধরনের। এ কারণে কানে বাতাস প্রবেশ করতে পারে না। এতে ঝুঁকি থেকেই যায়।

৪. এক গবেষণায় দেখা গেছে, হেডফোনে দীর্ঘ সময় উচ্চ শব্দে গান শুনলে সেটা খোলার পরও কিছুক্ষণ ভালোভাবে কানে শোনা যায় না।

৫. হেডফোন দিয়ে উচ্চ শব্দে গান শোনা ঠিক নয়। চিরতরে শ্রবণ শক্তি হারাতে পারেন।

হেডফোন গান শুনুন কিছু নিয়ম মেনে। এতে জীবন ও কান দুই-ই বাঁচবে। দীর্ঘ সময় হেডফোনের ব্যবহার করতে হলে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে হবে।

হেডফোন ব্যবহারের এমন কিছু নিয়ম, যা অন্তত কিছুটা হলেও আপনাকে বাঁচাবে শারীরিক ক্ষতি থেকে।

আসুন জেনে নেই এমন কিছু কৌশল-

১. যে সংস্থার মোবাইল ব্যবহার করছেন, ঠিক সেই সংস্থার, সেই মডেলটির হেডফোনই ব্যবহার করুন।

২. হেডফোনে গান শোনার সময় দেখে নিন ওই ভলিয়্যুমে বাইরের চিৎকার, আওয়াজ এ সবও কানে পৌঁছচ্ছে কি না। তা না হলে আওয়াজ আরও কমান।

৩. হাঁটার সময় বা রাস্তা-লাইন পেরনোর সময় হেডফোন ব্যবহার করবেন না।

৪. একটানা আধ ঘণ্টার বেশি হেডফোন ব্যবহার করবেন না। মোবাইলে কোনও সিনেমা দেখতে হলে আধ ঘণ্টা বিরতি নিন।

সর্বশেষ খবর

  হাই থটস অফ থটফুলম্যান তারেক সোলাইমান


  মুখ ও পায়ে পানি জমার বিভিন্ন কারণ


  বায়ুদূষণের মাত্রার ওপর ভিত্তি করে গাড়ির ওপর শুল্কারোপ


  ইস্ট ডেল্টায় মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত


  প্রক্রিয়াজাত খাদ্য উৎপাদনে নারী উদ্যোক্তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে: মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী


  বাংলাদেশে ৫০০ কৃত্রিম পা বিতরণ করছে ভারত


  শুধু একজন রোগীর জন্য ওষুধ বানালেন বিজ্ঞানীরা


  ডোপ টেস্ট পরীক্ষার ফি নির্ধারণ করল সরকার


  জাপানে টাইফুন হাগিবিসের তাণ্ডবে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪


  ১৬ অক্টোবর, ১৯৭১: প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া ও সোভিয়েত প্রেসিডেন্ট নিকোলাই পদগর্নির মধ্যে আলোচনা হয়।


সর্বাধিক পঠিত খবর





শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে - আমলকি



ম্যাজিকের মতো অসুখ সারবে নিমপাতায়

মিলল প্লাস্টিক বধের ‘অস্ত্র’!