শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০

English Version

নিপাহ রোগে আতঙ্ক নয়, দরকার সচেতনতা

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৬৪দিন
:
১১ঘণ্টা
:
৩৯মিনিট
:
৫৬সেকেন্ড
No icon আমার ডাক্তার

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১৩ ডিসেম্বর’১৯:  নিপাহ একটি ভাইরাসজনিত (নিপাহ ভাইরাস) সংক্রামক রোগ। ভাইরাসটি সাধারণত বাদুড় থেকে মানুষে সংক্রামিত হয়। সাধারণত ফল আহারী বাদুড় এই ভাইরাসের প্রধান বাহক।

তবে, যেহেতু আমাদের দেশে শীতকালে খেজুরের রস সংগ্রহ করা হয় এবং রাতের বেলায় বাদুড় কখনো কখনো খেজুরের রস পান করার জন্য খেজুর গাছের কাটা (ছিলানো) অংশে বা বাঁশের পাইপে মুখ দেয়, তাই এ সময় এই রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

নিপাহ রোগের কোন টিকা এবং সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই। সতর্কতা এবং সচেতনতাই এ রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের একমাত্র উপায়। রোগের লক্ষণ এবং প্রতিরোধের জন্য করণীয় সংক্রান্তে স্বাস্থ্য অধিদফতর কর্তৃক পরামর্শসমূহ নিম্নরূপ:-

নিপাহ রোগের প্রধান লক্ষণসমূহ

জ্বরসহ মাথা ব্যথা

মাংশ পেশীতে ব্যথা

খিঁচুনি আসা

প্রলাপ বকা

অজ্ঞান হওয়া

কোন কোন ক্ষেত্রে (তীব্র) শ্বাসকষ্ট হওয়া

নিপাহ রোগ প্রতিরোধে করণীয়

খেজুরের কাঁচা রস খাবেন না

কোন ধরনের আংশিক খাওয়া ফল খাবেন না

ফলমূল পরিস্কার পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে খাবেন

নিপাহ রোগের লক্ষণ দেখা দিলে রোগীকে যত দ্রুত সম্ভব নিকটস্থ সরকারি হাসপাতালে প্রেরণ করুন

আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে আসার পর সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন

খেজুড়ের গুড়, রান্না করা খেজুরের রসের পায়েস বা রান্না করা শাক-সবজি ও ফল-মূল নিরাপদ। ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার বেশি তাপে নিপাহ ভাইরাস নষ্ট হয়ে যায়।

সর্বাধিক পঠিত খবর





দেশে চিকিৎসা গবেষণা বাড়াতে হবে

ডিমেনসিয়া রোগীর আহার

জ্বর ঠোসা সারানোর সহজ উপায়


ময়মনসিংহে প্যাথেডিন ইনজেকশনসহ আটক ২