শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

English Version

কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৬

No icon আমার পরিবেশ

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১২ নভেম্বর ২০১৯: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় যাত্রীবাহী দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে আরও একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এ নিয়ে ভয়াবহ ওই ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৬ জনে। আহত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন আরও অর্ধশতাধিক যাত্রী। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।

মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে কসবা উপজেলার মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনের ক্রসিংয়ে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও তূর্ণা নীশিতার মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান বলেন, দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই দশজনের মৃত্যু হয়। পরে বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ছয় জন মারা যায়। আহত অর্ধশতাধিক যাত্রীকে কসবা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, নিহতদের পরিচয় শনাক্ত করে তাদের প্রত্যেকের পরিবারকে ২৫ হাজার করে টাকা দেওয়া হবে। এছাড়া আহতদের চিকিৎসারও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার পর থেকে চট্টগ্রামের সঙ্গে সিলেট ও ঢাকার রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এক মধ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর রেলওয়ে থেকে দু’টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে ভোররাত তিনটার আগে তুর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। এতে এতো লোকের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের পর তূর্ণা নিশীথার একাধিক বগি উদয়নের কয়েকটি বগির ওপর উঠে যায়। এর মধ্যে দুটি বগি দুমড়ে মুচড়ে যায়। সেখানে আরও মৃতদেহ থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

দুর্ঘটনার পরপরই রেল কর্তৃপক্ষ স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে নিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। পরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের তিনটি ইউনিট এবং পুলিশ সদস্যরাও উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়।

তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের কারও পরিচয় জানা যায়নি। দুর্ঘটনাস্থলের কাছে বায়েক শিক্ষা সদন উচ্চ বিদ্যালয়ে খোলা অস্থায়ী ক্যাম্পে দশজনের লাশ রাখা হয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত খবর


আলসারের লক্ষণগুলো জেনে নিন



চূড়ান্তভাবে নিষিদ্ধ হলো রেনিটিডিন




ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল'