রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯

English Version

দেশের প্রথম ‘স্কিন ব্যাংক’ হচ্ছে বার্ন ইনস্টিটিউটে

No icon সুসংবাদ

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ২৯ সেপ্টেম্বর’ ১৯: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে গড়ে ওঠা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে চালু হতে যাচ্ছে দেশের প্রথম স্কিন ব্যাংক।

শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিনে প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান কার্যক্রম এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানাতে শনিবার এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়েছেন ইন্সটিটিউটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশে প্রথম আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন স্কিন ব্যাংক সুবিধা চালু হতে যাচ্ছে এখানে, ফলে এই প্রতিষ্ঠান বেশি পোড়া রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে এটি যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করবে।”

স্কিন ব্যাংকে মৃতব্যক্তির চামড়া বা ত্বক সংরক্ষণ করা হয়। সেই চামড়া পোড়া রোগীদের প্লাস্টিক সার্জারি, এসিড দগ্ধ রোগীর চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

সামন্ত লাল সেন বলেন, “এটি বাংলাদেশের একমাত্র সরকারি হাসপাতাল, যেখানে রয়েছে হেলিপ্যাড। যাতে জরুরি ভিত্তিতে রোগীদের দ্রুত সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।”

অনুষ্ঠানে আধুনিক সুবিধার বিষয়ে জানান হাসপাতালের পরিচালক আবুল কালাম।

তিনি বলেন, “এখানে রয়েছে ১০টি আধুনিক অপারেশন থিয়েটার, যার মধ্যে চারটিতে ২৪ ঘণ্টা সেবা দেওয়া হবে।”

হাইপারবারিক অক্সিজেন থেরাপির মাধ্যমে শ্বাসনালী পুড়ে যাওয়া এবং দীর্ঘদিন না শুকানো ক্ষতের আধুনিক চিকিৎসা নিশ্চিত করা যাবে বলে তিনি জানান।

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আমাদের প্রত্যাশা, আমরা যেন এই ইন্সটিটিউট সম্পর্কে তার প্রত্যাশাগুলো, তার স্বপ্নগুলোকে বাস্তবায়িত করতে পারি।”

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তফা জালাল মহিউদ্দীন বলেন, “আমরা অনেক গর্বিত এবং আমাদের কাছে এটি অত্যন্ত আনন্দের বিষয় যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে থেকে যতগুলো পুরস্কার লাভ করেছেন, তার বেশিরভাগই স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের জন্য।”

অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষ্যে বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সংলগ্ন চানখাঁরপুল এলাকায় মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের পাশে ১২ তলা ‘শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট’ প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেন গত বছরের ২৪ অক্টোবর। 

সর্বশেষ খবর

  ডায়েটের ক্ষেত্রে হরহামেশাই যে ভুলগুলো হয়ে থাকে


  ২০ অক্টোবর’৭১: নয়াদিল্লীতে মার্শাল টিটো ও ইন্দিরা গান্ধীর মধ্যে আলোচনা শেষে এক যুক্ত ইস্তেহার প্রকাশিত হয়


  ১৯ অক্টোবর’৭১: “ভারত ও পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকায় ভয়াবহ পরিস্থিতি বিরাজ করছে”


  নিঃসন্তান দম্পতিদের জন্য নতুন আশা


  সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে রিয়াল মাদ্রিদ ফাউন্ডেশন


  ভারতের অপুষ্টিতে মারা যায় ৬৯ শতাংশ শিশু


  লিভারকে পরিষ্কার রাখে যে ৩টি খাবার


  মশাবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণে আলাদা সেল হচ্ছে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী


  উন্নত রাষ্ট্র হতে গেলে খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে: তথ্যমন্ত্রী


  তরুণ প্রজন্মকে মোবাইল অ্যাপসের আসক্তি থেকে বের হয়ে আসতে হবে' | স্বাস্থ্যের তাজা খবর


সর্বাধিক পঠিত খবর





শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে - আমলকি



মিলল প্লাস্টিক বধের ‘অস্ত্র’!


ম্যাজিকের মতো অসুখ সারবে নিমপাতায়