শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০

English Version

‘উহানে’ আশা দেখছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৬৪দিন
:
১১ঘণ্টা
:
৩৯মিনিট
:
৫৬সেকেন্ড
No icon সুসংবাদ

স্বাস্থ্য ডেস্ক- ২১ মার্চ, ২০২০: উহান, চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী। যেখান থেকে করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি হয়েছিল। এই শহর বিশ্বের দেশগুলোকে আশার আলো দেখাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান ড. টেড্রস অ্যাধানম গেব্রেয়াসুস। শুক্রবার সন্ধ্যায় সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কার্যালয়ে এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই কথা বলেন।

ড. টেড্রস অ্যাধানম গেব্রেয়াসুস জানান, প্রথমবারের মতো উহানে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। তিনি বলেন, ‘উহান বিশ্বের অন্য দেশগুলোকে আশা দেখাচ্ছে। এমনকি এই জটিল পরিস্থিতিতেও আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পারি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করে চলব। এই পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যেতে পারে। কিন্তু উহানের মতো দু-একটি শহরের ঘুরে দাঁড়ানোয় আশার আলো দেখাচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে তরুণদের আরও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে গেব্রেয়াসুস বলেন, মহামারি মোকাবিলায় তরুণেরা ‘অজেয় নয়’। তরুণদের নিয়ন্ত্রিত চলাফেরা বৃদ্ধদের জীবন বাঁচাতে ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন তিনি।

গেব্রেয়াসুস তরুণদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তরুণদের জন্য আমার একটি বার্তা আছে: তোমরা “অজেয় নও”। এই ভাইরাস তোমাদের কয়েক সপ্তাহের জন্য হাসপাতালে পাঠাতে পারে। এমনকি মৃত্যুর মুখেও ঠেলে দিতে পারে। হয়তো তোমাদের অসুখ হবে না। কিন্তু তোমাদের অনিয়ন্ত্রিত চলাফেরা আরেকজনকে জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণে ঠেলে দিতে পারে।’

অন্যদিকে পৃথিবীজুড়ে নেমে এসেছে অদ্ভুত এক আঁধারের ছায়া। চারিদিক নিরব, নিস্তব্ধ। কেউ কারও সাথে মিশছে না বা চাইছে না। যেন সবাই সবাইকে এড়িয়ে যেতে পারলেই বাঁচে। ‘বিশ্ব গ্রাম’ ধারণায় মানুষ অনেক বছর ধরেই একাকি জীবনের অভ্যস্ত হয়ে উঠছিল। কিন্তু এতটা একাকি হয়তো তারা কখনোই হয়নি। যে চাইলেও তারা একে অন্যের সাথে দেখা করতে পারবে না। সবাই যেন এক যুদ্ধ কেন্দ্রীক জরুরি অবস্থায় রয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত খবর



করোনার প্রতিষেধক প্রস্তুত



চীনের পাঠানো চিকিৎসা সরঞ্জাম আসছে আজ