রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০

English Version

ভারতে ৬ মাসে ধর্ষণের শিকার ২৪০০০ শিশু

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৬৪দিন
:
১১ঘণ্টা
:
৩৯মিনিট
:
৫৬সেকেন্ড
No icon শিশু কাহন

স্বাস্থ্য ডেস্ক ১৪ জুলাই’১৯: ‘বেটি বাচাও, বেটি পড়াও’। শিশুকন্যাদের কল্যাণে এই স্লোগানের প্রচলন করেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। কিন্তু তবুও নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না। চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসেই ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ২৪ হাজারের বেশি শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। শীর্ষে রয়েছে যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশ। সেখানে ছয় মাসে ৩ হাজার ৪৫৭ শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

শিশু ধর্ষণে প্রথম পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ রয়েছে পঞ্চম স্থানে। ছয় মাসে সেখানে ১ হাজার ৫৫১ শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এফআইআর জমা পড়েছে।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট একের পর এক এ জাতীয় ধর্ষণের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে স্বতঃপ্রণোদিত হস্তক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ আদালতের রেজিস্ট্রিকে এ নিয়ে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছেন। সোমবার সুপ্রিম কোর্ট রাজ্যগুলোর জন্য এ ব্যাপারে নির্দেশিকা জারি করতে পারে। প্রধান বিচারপতির নির্দেশেই আদালতের রেজিস্ট্রি পুরো দেশে শিশু ধর্ষণের তথ্য জোগাড় করছে। এতেই ৬ মাসে ২৪ হাজারের বেশি ধর্ষণের পরিসংখ্যান উঠে এসেছে।

বিরোধীদের অভিযোগ, কেন্দ্রে বিজেপি সরকারের চরম উদাসীনতার কারণেই সুপ্রিম কোর্টকে এভাবে হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে। কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ২৪ হাজার ২১২টি শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

কিন্তু মাত্র ৯১১টি মামলায় বিচার শেষ হয়েছে। উত্তরপ্রদেশে সবচেয়ে বেশি ঘটনা ঘটলেও মাত্র ৩ শতাংশ মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। শিশু ধর্ষণে প্রথম পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে উত্তরপ্রদেশের পরেই অবশ্য রয়েছে কংগ্রেসশাসিত মধ্যপ্রদেশ আর রাজস্থান। এরপর চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে মহারাষ্ট্র ও পশ্চিমবঙ্গ।

সর্বাধিক পঠিত খবর





করোনার প্রতিষেধক প্রস্তুত



চীনের পাঠানো চিকিৎসা সরঞ্জাম আসছে আজ