মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮

English Version

গরু-মুরগির ওপর অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার ভোক্তার জন্য বিষ

No icon ফার্মাসিউটিক্যালস

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ৯ অক্টোবর’১৮: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী ‘অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে সচেতনতা বৃদ্ধি’ বিষয়ক প্রদর্শনী শুরু হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ওয়ার্ল্ড লিংকআপের আয়োজনে সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র ভবনের সামনে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন রাবি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা।

এ প্রদর্শনী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মাত্রাতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার ও এর ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা আয়োজকদের।

আয়োজক সূত্রে জানা গেছে, অসুখ সারাতে অ্যান্টিবায়োটিক গুরুত্বপূর্ণ হলেও এটিকে মুরগি ও গরুর ওপর নির্বিচারে প্রয়োগ করা হচ্ছে। অ্যান্টিবায়োটিকের এই অপ্রয়োজনীয় ও অতিরিক্ত ব্যবহারে মাংসজাতীয় খাদ্য ভোক্তার জন্য বিষে পরিণত হচ্ছে। এ ছাড়া বেশিরভাগ রোগীর রোগের কোনো উপসর্গ দেখা দিলে তারা বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে না গিয়ে যান ফার্মেসিতে। সেই দোকানদারই রোগীকে দেখেশুনে তার অভিজ্ঞতার আলোকে অনেক সময় সরাসরি অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ দেন। রোগী আবার কয়েকটি অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ খেয়ে রোগ একটু সারলেই ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেন। অ্যান্টিবায়োটিকের পুরো কোর্স শেষ না করে অর্ধেকে বন্ধ করে দেওয়া শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ।

অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আজিজুর রহমান বলেন, ‘মূলত অ্যান্টিবায়োটিক জীবিত ব্যাকটেরিয়া তথা অণুজীবের বিপরীত কাজ করে। যেসব রোগ সাধারণত ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণে হয়, তা নিয়ন্ত্রণ ও নিরাময়ে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা হয়। এজন্যই ভাইরাসজনিত রোগের বিপরীতে অ্যান্টিবায়োটিক কার্যকর নয়। তাই অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে সচেতনতা প্রয়োজন।

সর্বাধিক পঠিত খবর

পিসিওএস ও বন্ধ্যাত্ব

মানসিক চাপ দূর হবে এক টুকরো বরফে!


রক্তচোষা জোঁকের লালায় ক্যানসার মুক্তি!





এবার ওষুধ ছাড়াই দূর হবে মাইগ্রেন !

মনের রোগে দেশের দুই কোটি মানুষ: জরিপ