বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯

English Version

০৯ জুলাই, ১৯৭১: পাকবাহিনীর এক প্লাটুন সৈন্য নায়নপুর যাবার পথে মেজর সালেকের পুতে রাখা এন্টিপার্সোনাল মাইনের ওপর পড়ে যায়।

No icon স্পট লাইট

ডেস্ক রিপোর্ট: ০৯ জুলাই ’১৯: পাকবাহিনীর এক প্লাটুন সৈন্য শালদা নদী থেকে নায়নপুর যাবার পথে মেজর সালেকের ৫ সদস্যের ডিমোলিশন পার্টির পুতে রাখা এন্টিপার্সোনাল মাইনের ওপর পড়ে যায়। মাইন বিস্ফোরণে ১০ জন পাকসেনা নিহত এবং আরো অনেকে আহত হয়। পাকসেনারা বিপর্যস্ত হয়ে শালদা নদী ঘাঁটিতে ফিরে যায়।

সন্ধ্যায় মেজর সালেকের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাদল পাকবাহিনীর শালদা নদী অবস্থানের ওপর কামান ও মর্টারের সাহায্যে প্রচন্ড গোলাবর্ষণ করে। প্রায় আধঘন্টাব্যাপী গোলাবর্ষণে পাকবাহিনীর ১৯ জন সৈন্য নিহত ও ১১ জন আহত হয়।

কুমিল্লায় মুক্তিবাহিনীর কটেশ্বর অবস্থানের ওপর পাকবাহিনীর দুই কোম্পানী সৈন্য হামলা চালায়। পরে আরো দুই কোম্পানী সৈন্য পাকসেনাদের শক্তিবৃদ্ধি করে। ৩/৪ ঘন্টা যুদ্ধের পর পাকসেনাদের আক্রমণ ব্যাহত হয় এবং তারা পিছু হটে। এই যুদ্ধে পাকসেনাদের ২৪/২৫ জন সৈন্য নিহত হয়।

চতুর্থ বেঙ্গলের ‘বি’ কোম্পানীর এক প্লাটুন যোদ্ধা একটি ট্রাক ও দু‘টি জীপ বোঝাই পাকসেনাদের চৌদ্দ গ্রামের বালুজুরি ভাঙ্গাপুলের কাছে আক্রমণ চালায়। ৩/৪ ঘন্টাব্যাপী প্রচন্ড সম্মুখযুদ্ধে পাকবাহিনীর ৩০ জন সৈন্য নিহত ও ৬ জন আহত হয়।

সর্বাধিক পঠিত খবর





শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে - আমলকি



মিলল প্লাস্টিক বধের ‘অস্ত্র’!

ম্যাজিকের মতো অসুখ সারবে নিমপাতায়

লিভারকে পরিষ্কার রাখে যে ৩টি খাবার