বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০

English Version

করোনা রোগীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স দান করলেন সালাহ

No icon স্পট লাইট

ডেস্ক রিপোর্ট, ০৩ জুলাই, ২০২০: নিজ শহরের করোনা রোগীদের চিকিৎসার সুবিধার্থে একটি অ্যাম্বুলেন্স দান করেছেন লিভারপুলের মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহ। ‘আরব নিউজ’র রিপোর্টে এমনটাই জানানো হয়েছে।

নিজ শহরের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের জন্য প্রায় ৪০ হাজার মার্কিন ডলার বা প্রায় ৬ লাখ মিশরীয় পাউন্ড খরচ করে এই অ্যাম্বুলেন্সটি কিনে দিয়েছেন লিভারপুলের হয়ে সদ্যই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জেতার স্বাদ পাওয়া সালাহ। এতে উত্তর মিশরে অবস্থিত তার নিজ শহর নাগ্রিগের ৩০ হাজার বাসিন্দা উপকৃত হবেন।

সালাহ’র দেওয়া অ্যাম্বুলেন্সটির উদ্বোধন করেন মিশরের গার্বিয়ার মেয়র তারেক রাহমানি। এসময় উপস্থিত ছিলেন সালাহ’র বাবা সালাহ ঘালি, গার্বিয়ার অ্যাম্বুলেন্স ইনস্টিটিউটের প্রধান ডা.ম্যাগডি আওয়াদ ও গার্বিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি ডা. আবদেল নাসের হিমিদাসহ আরও অনেকে।

এর আগে ২০১৮ সালে নাগ্রিগে মেয়েদের একটি স্কুল নির্মাণে অর্থ সহায়তা করেছিলেন সালাহ। স্কুলে পড়াশোনা করার জন্য স্থানীয় মেয়ে শিশুদের অনেক দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হয়, এমনটা জানার পর নিজে থেকেই স্কুল নির্মাণে এগিয়ে আসেন ‘মিশরীয় রাজা’। এছাড়া নিজের পুরনো স্কুলের জন্য ফুটবল মাঠ ও জিমের ব্যবস্থাও করেছিলেন তিনি।

সালাহ’র জনহিতকর কর্মকাণ্ডের তালিকা বেশ লম্বা। তিনি এবং তার বাবা মিলে গার্বিয়ায় পাঁচ একর জায়গা কিনে তা স্থানিয় প্রশাসনকে দান করে দিয়েছিলেন। পরে সেখানে স্থানীয়দের জন্য পানি বিশুদ্ধকরণ প্ল্যান্ট নির্মাণ করা হয়েছে।

গত বছর মিশরের ন্যাশনাল ক্যানসার ইনস্টিটিউট সংস্কার করার জন্য ৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দান করেন সালাহ। ওই হাসপাতালে সন্ত্রাসীদের এক গাড়ি বোমা হামলায় ২০ জন নিহত ও ৪৭ জন আহত হয়েছিলেন এবং হাসপাতালের অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। সালাহ’র দান করা অর্থে হাসপাতালটি ফের পূর্বের চেহারায় ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এই করোনাকালে নিজের দাতব্য সংস্থার মাধ্যমে নিজ শহরের হাজার হাজার টন খাবার বিতরণ করেছেন সালাহ। তার দান করা খাবারের তালিকায় ছিল পশুর মাংস, শুকনো খাবার, গম, পানি।

মিশরে সালাহ’র এমন মহান কীর্তির তালিকা করলে শেষ হবে না। তবে তার বর্তমান ঠিকানা লিভারপুলেও তাকে অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে দেখা গেছে। কিছুদিন আগে লিভারপুলের একটি পেট্রোল স্টেশনে স্থানীয়দের বিনামূল্যে জ্বালানি সরবরাহ করতে দেখা গেছে তাকে।

গত ফেব্রুয়ারিতে, ‘ইনস্ট্যান্ট নেটওয়ার্ক স্কুলস’ প্রোগ্রামের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে সালাহ’র নাম ঘোষণা করে জাতিসংঘ। এই প্রোগ্রামের উদ্দেশ্য শরণার্থী তরুণ-তরুণীদের মধ্যে যোগাযোগ প্রতিষ্ঠা করা এবং অনলাইনের মাধ্যমে তাদের উচ্চ পর্যায়ের শিক্ষার ব্যবস্থা করা।

সর্বাধিক পঠিত খবর



ঘর থেকেই বেশি ছড়াচ্ছে করোনা: গবেষণা


মা'কে হারালেন সাদিয়া ইসলাম মৌ