মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮

English Version

বালিশের নিচেই নীরব ঘাতক!

No icon স্পট লাইট

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১৪ জানুয়ারি ২০১৮: রাতে ঘুমানোর সময় নিজের মোবাইল ফোনটা বালিশের নিচে কিংবা পাশে রেখে দেয়ার অভ্যাস আছে প্রায় সবারই। এর যুক্তিসঙ্গত কারণও আছে। অনেক সময় এলার্ম সেট করে রাখা হয় অথবা ফোনকলের অপেক্ষায় মোবাইলটাকে রাখতে হয় হাতের নাগালে।

কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন মাথার কাছে থাকলে তা মানুষের মস্তিষ্কের ওপর প্রভাব ফেলে। একটি গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, মোবাইল ফোন ও মস্তিষ্কের মাঝে দূরত্ব না থাকলে সেই মোবাইল ফোন মানুষের ঘুমের পরিমাণ ও ঘুমের গভীরতার ওপর বেশ ভালোরকম প্রভাব ফেলে।

গবেষকরার বলছেন, মোবাইল ফোন থেকে বের হওয়া রেডিয়েশন আপনার মস্তিষ্কের ক্ষতি করতে পারে এবং আপনি প্রচণ্ড মাথাব্যথা, মাংসপেশী ব্যথা কিংবা অন্য কোনো শারীরিক সমস্যা অনুভব করতে পারেন। মোবাইল থেকে বের হওয়া ৯০০ মেগা হার্জেল পরিমান রেডিয়েশন শরীরের কার্যকারিতা নষ্ট করার সংকেত প্রদান করে।

গবেষণায় দেখা গেছে, মোবাইল ফোন থেকে বের হওয়া রেডিয়েশনের সঙ্গে শরীরের কার্যকারিতার একটা যোগসূত্র আছে। এটা শরীরের সব ধরনের উর্বরতা কমায়। মোবাইল ফোন থেকে বের হওয়া নীল রঙের রশ্মি ঘুমেরও ব্যাঘাত ঘটায়। কারণ এই রশ্মির তরঙ্গ দৈর্ঘ্য অনেকটা দিনের আলোর মতোই, একারণে মনে হয় আমরা দিনের আলোতেই ঘুমাচ্ছি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন আপনার থেকে কমপক্ষে তিন ফুট দুরত্বে রাখুন। যখন ঘুমাতে যান মোবাইল ফোনের সুইচ বন্ধ রাখুন অথবা এরোপ্লেন মুডে রাখুন। অনেকে মোবাইল ফোনেই অ্যালার্ম দিয়ে নিজের পাশে রেখে ঘুমান। কিন্তু যখন আপনি জানছেন এটা আপনার জন্য ক্ষতিকর তখন সত্যিকারের অ্যালার্ম ঘড়ি রাখুন। কেউ কেউ আবার ঘুমানোর আগে প্রিন্টের চাইতে ই-বুক পড়তে পছন্দ করেন । শরীর ও মন সুস্থ রাখতে ঘুমানোর আগে এই ধরনের খারাপ অভ্যাস পরিত্যাগ করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

সর্বাধিক পঠিত খবর

পিসিওএস ও বন্ধ্যাত্ব

মানসিক চাপ দূর হবে এক টুকরো বরফে!


রক্তচোষা জোঁকের লালায় ক্যানসার মুক্তি!





এবার ওষুধ ছাড়াই দূর হবে মাইগ্রেন !

মনের রোগে দেশের দুই কোটি মানুষ: জরিপ