মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮

English Version

হাত ধোয়ার যত ভুল

No icon হেলথ টিপস

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১১ জুন ২০১৮: হাত ধোয়ার কাজটা সব বয়সী মানুষের জন্যই খুব জরুরি। রোগ সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেয়ে সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়ার কাজটা প্রতিদিন নিয়মিত করা উচিত। এতে করে হাতের ক্ষতিকর বেশিরভাগ ব্যাকটেরিয়া মরে যায়। তবে হাত ধোয়ার সময় প্রতিদিনই কোনো না কোনও ভুল করে যাচ্ছি আমরা। এতে করে জীবাণু ধ্বংস করার উদ্দেশ্যটা পুরোপুরি সফল হচ্ছে না। তাই হাত ধোয়ার ভুলগুলো আগে আমাদের জেনে নেওয়া উচিত-

১) মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির এর গবেষণায় দেখা গেছে ৯৫ শতাংশ মানুষই বেশি সময় নিয়ে হাত ধোয়ার কাজটা করেন না। এতে করে জীবাণু সহজে মরে না। দেখা গেছে একজন মানুষ গড়ে ৬ সেকেন্ডেই হাত ধোয়ার কাজ সারেন।

২) শুধু মাত্র ওয়াশরুম থেকে বের হয়েই হাত ধুতে হবে, এ ধারণা ঠিক না। প্রতিদিন লিফটের বাটন, দরজার হাতল, এটিএম বুথ অনেক জায়গাতেই হাত লাগতে হয় আপনার। এসব জায়গায় ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া থাকে অনেক। তাই যেকোনও কিছু ধরার পরই হাত ধুয়ে ফেলা ভালো।

৩) কতক্ষণ ধরে হাত ধোয়ার কাজ করেন আপনি? সাবান দিয়ে দু’হাত অন্তত ২০ থেকে ৩০ সেকেন্ড ধুতে হবে আপনাকে। হাতের দুই তালু, উল্টো পিঠ, আঙ্গুলের ফাঁক খুব ভালো করে সাবান দিয়ে ঘষতে হবে।

৪) হাত ধোয়ার পর যদি ভালোভাবে হাত না শুকায়, তাহলে জীবাণু মরার উদ্দেশ্য বিফল হতে পারে। তাই হাত ধুয়ে তাড়াতাড়ি মুছে ফেলুন।

৫) গরম পানি দিয়েই হাত ধুতে হবে, এমন কোনও প্রয়োজনীয়তা নেই। আমরা  প্রায় সবাই বিশ্বাস করি গরম পানি বা কুসুম গরম পানি হাতের জীবাণু ধ্বংস করতে ভালো ভূমিকা রাখে।তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে ঠাণ্ডা পানিও একই ভাবে জীবাণু ধ্বংস করে। এক্ষেত্রে শর্ত হলো হাত পানি দিয়ে ভালোভাবে ঘসে-মেজে ধুতে হবে।

৬) হাত ধোয়ার পরই কি পাবলিক ওয়াশরুমের দরজা, পানির ট্যাপ এসব ধরেছেন? তাহলে আবারো জীবাণু সংক্রমণের আশংকা আছে। সেক্ষেত্রে টিস্যু পেপার দিয়ে পাবলিক ওয়াশরুমের দরজা, পানির ট্যাপ এসব ধরুন।

৭) সাবানের পরিবর্তে  স্যানিটাইজার ব্যবহার করছেন হাত ধোয়ার সময়? এতে ভালো ফল পাওয়া যাবে না। কারণ স্যানিটাইজারে যে অ্যালকোহল থাকে তা বেশি কিছু মাইক্রোব দূর করতে পাওে ঠিক, তবে তা সব ধরণের জীবাণু বা ক্ষতিকর কেমিক্যাল দূর করতে পারে না।  হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করলে বেশি পরিমাণে লিকুইড নিয়ে হাত ধুতে হবে।

৮) গবেষণায় দেখা গেছে সাবানের গায়েও আটকে থাকে অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়া। তাই আপনার হাত ধোয়ার আগে সাবানের বারটিকে ভালোভাবে আগে ধুয়ে নেয়া উচিত। এ কাজটা অনেকেই করেন না। এতে করে সাবান থেকে জীবাণু হাতে চলে আসে। তাই হাত ধোয়ার আগে ট্যাপের পানিতে সাবানটা ভালো করে ধুয়ে তারপর হাত ধোয়ার কাজ সারুন। মনে রাখা উচিত সব সময় সাবানটি শুকনো জায়গায় রাখতে হবে, নইলে জীবাণু সংক্রমিত হবে।

৯) হাত ধোয়ার জন্য সাবানই সবচেয়ে ভালো উপকরণ। সাবানে থাকা কেমিক্যাল হাত ও শরীর থেকে জেদি জীবাণুকেও টেনে বের করে। হাত ধোয়ার জন্য অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল সাবানই সেরা, তার প্রমাণ নেই খুব একটা। তবে বার সাবানের চেয়ে হাত ধোয়ার জন্য লিকুইড সাবান বেশি কার্যকর বলছেন গবেষকরা।

তথ্যসূত্র: বোল্ড স্কোই।

 

সর্বাধিক পঠিত খবর


কিডনী ড্যামেজের লক্ষণ সমূহ

ডিনার দেরিতে করা মানেই ক্যান্সার!



বুকের ব্যথার কারণ সমূহ

জন্ডিসের কারণ ও প্রতিকার


পেটের চর্বি থেকে মুক্তির উপায়