বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৮

English Version

কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রনে করণীয়..

No icon হেলথ টিপস

স্বাস্থ্য ডেস্ক: ১৪ ফেব্রয়ারি ২০১৮:  কিছু পদ্ধতি মেনে চললে সহজেই কোস্টেরল কমানো যায়। দেখে নেওয়া যাক করনীয় গুলো-

পানীয়ের তালিকায় গ্রিন টি​

গ্রিন টির একটি বড় উপকার হলো, এই চা নিয়মিত পান করলে শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে যায়। মাত্র তিন মাস এটি পানের অভ্যাস করুন; ফল পাবেন। 'ব্ল্যাক টি' খেলেও মিলবে একই ফল।

ফ্যাট চিনতে হবে

ফ্যাট বা চর্বি অনেক রকমের হয়। কোলেস্টেরলের কথা মাথায় থাকলে এটাকে দুই ভাগে ভাগ করা যেতে পারে। স্যাচুরেটেড আর আনস্যাচুরেটেড বা ট্রান্স ফ্যাট। এই ট্রান্স ফ্যাট প্রাকৃতিক খাবারে খুবই কম পাওয়া যায়। এটি মূলত প্রক্রিয়াজাত চর্বি। তাই স্বাভাবিকভাবেই এটি শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে দেবে।

সবজি ও ফল

বলা হয়, তাজা সবজি আর ফল মাত্র চার সপ্তাহেই কোলেস্টেরলের মাত্রাকে স্বাভাবিক পর্যায়ে আনতে পারে। এতে আছে প্রচুর পুষ্টি। পাশাপাশি এটি খারাপ কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

শরীরচর্চা

অনেক ব্যাধির মতোই খারাপ কোলেস্টেরল কমাতেও শরীরচর্চার বিকল্প নেই। আপনাকে খুব জোরে দৌড়াতে হবে, সাঁতার কাটতে হবে কিংবা সাইক্লিং করতে হবে- এমন কোনো কথা নেই। শুধু শরীরকে নড়াচড়া করান, তাতেই কাজ হবে।

চাপ ও ধূমপানকে 'না'

মানসিক চাপ কোলেস্টেরলের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। মানুষ উদ্বেগ এড়িয়ে যেতে পারে না, তবে কমাতে পারে। আপনি সেই চেষ্টা করুন। আর ধূমপানের বিষয়ে শুধু এটুকুই বলা যায়, অনেক শারীরিক সমস্যার মূলে রয়েছে ধূমপান।

 

 

সর্বাধিক পঠিত খবর


কিডনী ড্যামেজের লক্ষণ সমূহ

ডিনার দেরিতে করা মানেই ক্যান্সার!



বুকের ব্যথার কারণ সমূহ

জন্ডিসের কারণ ও প্রতিকার



পেটের চর্বি থেকে মুক্তির উপায়