রবিবার, ৩১ মে ২০২০

English Version

একই দিনে তারা দু’জন

No icon টিভি

আমার বিনোদন ডেস্ক: চিত্রনায়িকা কেয়া ও অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ একইদিনে এই পৃথিবীর বুকে আলো ছড়াতে এসেছেন। তবে সালটা ভিন্ন। কেয়া এবং মৌসুমী হামিদেও জন্মদিন বুধবার ১২ অক্টোবর। মজার বিষয় হচ্ছে দু’জনের কেউই জানতেন না যে একইদিনে তাদের জন্মদিন। কিন্তু ছবি তুলতে গিয়েই জানলেন দু’জন একইদিনে নিজেদের জন্মদিনের কথা। জানলেন দু’জনই একই রাশির জাতিকা। জন্মদিন উপলক্ষ্যে কেয়া কিংবা মৌসুমী হামিদের থাকছেনা বিশেষ কোন আয়োজন।

কেয়া বলেন,‘ জন্মদিনে সাধারণত আমি বিশেষ কোন কিছুই করিনা। কেন যেন এটা আমার করা হয়ে উঠেনা। তবে এটা সত্য যে দিনটিতে নানানভাবে সারপ্রাইজড হই আমি। জানি না এবার এমন কিছু হবে কী না। তবে দিনটি পরিবারের সাথেই কাটাতে ভালোবাসি আমি। আজ মৌসুমী হামিদেরও জন্মদিন। তার জন্য আমার অনেক অনেক শুভ কামনা। আমি সবার কাছে দোয়া চাই যেন সবসময় ভালো থাকি, সুস্থ থাকি। ভালো ভালো কাজ করতে পারি। ’ মৌসুমী হামিদ’র ভাষ্য প্রায় একই রকম। তিনি বলেন,‘ জন্মদিন উপলক্ষ্যে আমি বিশেষ কিছু করছিনা। তবে হয়তো সন্ধ্যার পরের সময়টুকু একটু বিশেষভাবে কাটাতে পারি। বিশেষ এই দিনটিতে সবার ভালোবাসা, দোয়া চাই বেশি বেশি যেন ভালো ভালো গল্পের নাটক টেলিফিল্মে কাজকরতে পারি।

কেয়া আপু’কেও জন্মদিনে শুভেচ্ছা।’ এদিকে মুভি প্ল্যানেট প্রযোজিত ও সাফি উদ্দিন সাফি পরিচালিত ‘ব্ল্যাকমানি’ সিনেমায় কেয়া ও মৌসুমী হামিদ একসঙ্গে অভিনয় করেছিলেন। এটি গত বছর মুক্তি পায়। এতে তাদের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। কেয়া এরপর আর নতুন কোন সিনেমায় অভিনয় করেননি। সর্বশেষ তিনি কাজী ইলিয়াস কল্লোলের নির্দেশনায় একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেন কিছুদিন আগে। চলচ্চিত্রে কেয়া’র অভিষেক হয় মনতাজুর রহমান আকবরের নির্দেশনায় ‘কঠিন বাস্তব’ সিনেমাতে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে। তার বিপরীতে ছিলেন আমিন খান ও রিয়াজ। এরপর ‘রংবাজ বাদশা’, ‘ভালোবাসার শত্রু’, ‘দিওয়ানা মাস্তান’, ‘সাহসী মানুষ চাই’, ‘নষ্ট’, ‘মহব্বত জিন্দাবাদ’সহ আরো বেশকিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করে ঢাকাই চলচ্চিত্রের শীর্ষ নায়িকায় পরিণত হন কেয়া।

কিন্তু ২০০৪ সালে যশোহর থেকে ঢাকায় ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় কেয়া’র ভাই রয়েল মারা যান এবং মা পায়ে প্রচন্ড আঘাত পান। কেয়ার পরিবারে নেমে আসে ভয়াবহ বিপর্যয়। মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন কেয়া। গত দুই ঈদে মৌসুমী অভিনীত দর্শকপ্রিয় নাটকের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে সালাহ উদ্দিন লাভলুর ‘লাব মানে ভালোবাসা’ ও ‘ইতি মির্জাফর’, সুমন আনোয়ার’র ‘আশার আলো’ ,‘অনামিকা’, অনিমেষ আইচের ‘অশ্বডিম্ব’, গোলাম মুক্তাদীর শানের ‘হট এ্যা- স্পাইসি’, আবু হায়াত মাহমুদের ‘হায়ারোগ্রিফিক্স’, ‘আর জে মুখলেস’, মেহেদী হাসান জনির ‘ব্রেক আপ টু’ ইত্যাদি।

ছবি : গোলাম সাব্বির

সর্বাধিক পঠিত খবর




করোনার বিরুদ্ধে একা লড়াই